আইসক্রিমে মন গলেনি স্ত্রীর: ৯৯৯ ফোন করে ধরিয়ে দিলেন স্বামীকে!

আইসক্রিম নিয়ে শ্বশুরবাড়ি হাজির হয়েছিলেন স্ত্রীর মান ভাঙাতে। কিন্তু স্ত্রী উল্টো মারধরের অভিযোগে ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে পুলিশ ডেকে ধরিয়ে দিলেন তাকে। ঘটনাটি ঘটেছে ভোলার লালমোহনে। স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে শ্বশুরবাড়ি থেকে সোহেল নামের ওই রডমিস্ত্রিকে আটক করেছে

পুলিশ। মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) রাতে ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে তার স্ত্রীর করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে লালমোহন পৌর এলাকার ৮ নম্বর ওয়ার্ড থেকে তাকে আটক করা হয়।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) দুপুর পর্যন্ত থানা হাজতে আটক থাকার পর দুই পক্ষের সমঝোতায় সোহেলকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। সোহেল উপজেলার বদরপুর ইউনিয়নের চরটিটিয়া গ্রামের মো. সফিজল খানের ছেলে। থানা হাজতে সোহেল জানান, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর

কাজের উদ্দেশ্য তিনি ঢাকায় চলে যান। সেখানে রডমিস্ত্রির কাজ করেন। বাড়িতে তার স্ত্রী শাবানা অন্য আরেকজনের সঙ্গে মোবাইলে কথা বলার কারণে তার ওপর রাগ করেন। এতে শাবানা বাবার বাড়ি চলে যান। মঙ্গলবার ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন সোহেল। বিকেলে স্ত্রীর অভিমান ভাঙিয়ে বাড়িতে নিয়ে আসার শ্বশুরবাড়ি যান আইসক্রিম নিয়ে। সন্ধ্যায় ওই বাড়িতে পৌঁছালে তাকে ঘরে রেখে তার স্ত্রী শাবানা ৯৯৯ নম্বর ফোন দিয়ে পুলিশে খবর দেন।

সোহেলের স্ত্রী শাবানা জানান, বিয়ের পর তার স্বামী অন্য একজনের সঙ্গে সম্পর্ক আছে বলে মিথ্যা অভিযোগ আনেন তার বিরুদ্ধে। এসব নিয়ে তাকে প্রায় সময় মারধর করতেন। যে কারণে তাকে শাস্তি দেওয়ার জন্য তিনি ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেন।

লালমোহন থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাকসুদুর রহমান মুরাদ জানান, জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ থেকে থানায় জানানো হয়- স্ত্রী শাবানাকে তার বাড়িতে গিয়ে স্বামী সোহেল মারধর করছেন। পরে পুলিশ গিয়ে সোহেলকে আটক করে। এ বিষয়ে কোনো লিখিত অভিযোগ বা মামলা করা হয়নি। যে কারণে দুই পরিবারের সমঝোতায় সোহেলকে পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।